জাতীয় দলের গর্বিত সদস্য এহসানুল হক সেজান

এহসানুল হক। অনেক সম্ভাবনা নিয়ে একজন অফস্পিন অলরাউন্ডার হিসেবে ২০০২ সালে শ্রীলংকার সাথে টেস্ট অভিষেক। ম্যাচে ৩ নাম্বার পজিশনে ব্যাট করে ২১ বলে মাত্র ২ রান করে আউট হন। হান্নান সরকারের ৫৫ রানের সুবাদে বাংলাদেশ মাত্র ১৬১ রান সংগ্রহ করার পর শ্রীলংকা ডি সিলভার ডাবল সেঞ্চুরী ও জয়সুরিয়ার সেঞ্চুরীর সুবাদে ৫৪১ রান করেন। বল হাতে ৩ ওভারে ১৮ রান দিয়েও কোন উইকেট পাননি সেজান।

তারপর দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে আল শাহরিয়ারের ৬৭ রানের সুবাদে বাংলাদেশ মাত্র ১৮৪ রানে অলআউট হলে ইনিংস ও ১৯৬ রানে জয় লাভ করে শ্রীলংকা। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট হাতে ১০ বলে ৫ রান করেন সেজান। দুই ইনিংসে ৭ রান করলেও কোন উইকেট পাননি।

টেস্ট ক্যারিয়ারে মাত্র একটি ম্যাচই খেলেছেন তিনি। তারপর ওয়ানডে খেললেও আর টেস্ট দলে ডান পাননি তিনি।

২০০২ সালেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাথে ওয়ানডে অভিষেক। ম্যাচে সারওয়ান এর সেঞ্চুরীতে ক্যারিবিয়ানরা ২৬৬ রান সংগ্রহ করেন। বল হাতে ১০ ওভারে ৫৭ রান দিয়ে ১ উইকেট শিকার করেন সেজান। ২৬৬ রানের জবাবে ওপেনিং পজিশনে ব্যাট করতে নেমে ২৫ বলে মাত্র ৯ রান করেন। আশরাফুলের ৪৪ রানের সৌজন্যে বাংলাদেশ ১৮২ রানে অলআউট হলে ক্যারিবিয়ানরা ৮৪ রানে জয় লাভ করে।

তারপর জাতীয় দলের হয়ে ২০০৩ সালের আফ্রিকার সাথে শেষ ওয়ানডে খেলা পর্যন্ত মাত্র ৬টি ম্যাচ খেলেন তিনি। ব্যাট হাতে ২০ রান বেস্টে মোট ৫৭ রান করার পাশাপাশি বল হাতে ২ উইকেট বেস্টে ৩ উইকেট শিকার করেন।

মূলত: একমাত্র টেস্ট ও ৬টি ওয়ানডেতেও নিজের সামর্থ্য অনুযায়ী খেলতে না পারাতেই জাতীয় দলের দরজা বন্ধ হয়ে যায় তার জন্য। অথচ ঘরোয়া ক্রিকেটে দুর্দান্ত পারফরমার তিনি। একজন টপঅর্ডার ব্যাটস হিসেবে প্রথম শ্রেণীর ৬৩টি ম্যাচে ১৮৬ বেস্টে ১০ সেঞ্চুরী ও ২৪ ফিফটিতে ৪০১৭ রান সংগ্রহ করেছেন তিনি। বল হাতে ৪ উইকেট বেস্টে ৪৬ উইকেট শিকার করেছেন।

লিষ্ট এ ৭১ ম্যাচে ১১৭ বেস্টে ১ সেঞ্চুরী ও ৮ ফিফটিতে ১৫৪২ রান সংগ্রহ করেছেন। বল হাতে ৩ উইকেট বেস্টে ৪২ উইকেট শিকার করেছেন। ২০১৪ সাল পর্যন্ত ঘরোয়া ক্রিকেটের নিয়মিত পারফরমার ছিলেন তিনি।

নিজের সামর্থ্য অনুযায়ী আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে খেলতে পারলে তিনিও হতে পারতেন দেশের সেরা কিংবা বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। তবে জাতীয় দলের হয়ে ধারাবাহিক ব্যর্থতার কারনে ক্যারিয়ার দীর্ঘায়িত করা হয়নি তার।

আজকের দিনে, পরিবার পরিজন নিয়ে যেখানেই থাকুন, ভালো থাকুন সব সময়, এই কামনা।

ছবিতে-শিব নারায়ন চন্দলপলকে এলবির ফাঁদে ফেলে আউট করার পর উদযাপনের মুহুর্তে।

 

জুবায়ের আহমেদ

ক্রীড়া লেখক