সোহেল নবী, ক্রিকবল ডেস্কঃ সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম,গ্রাউন্ড-২ তে আজ (রবিবার) সকাল ৯-৩০ এ মুখোমুখি হয় সিলেট বনাম খুলনা বিভাগ। জাতীয় ক্রিকেট লীগ-২৩ তম আসরের টায়ার-১ এর ম্যাচগুলোর ভেন্যু দেওয়া হয় সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম এবং তার আদলে নির্মিত গ্রাউন্ড-২ তে।

সিলেটের বিপক্ষে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন খুলনার অধিনায়ক মোহাম্মদ মিথুন। ইমরানুজ্জামান কে সঙ্গী করে মাঠে নামেন আনামুল হক বিজয়। সবকিছু ঠিক থাকলেও বিপত্তি বাধে সিলেটের পেসার এবাদত হোসেনের করা প্রথম ওভার থেকে। অপ্রত্যাশিত একের পর এক বাউন্সারের সম্মুখীন হয় ওপেনার বিজয়। এবাদতের ৩য় ওভারের এবাদতের বলে আবারো অপ্রত্যাশিত বাউন্সে আউটের আবেদন করে সিলেট। বিষয়টি নজরে আসে অধিনায়ক মোহাম্মদ মিথুনের। খেলা স্থগিতের ইংগিত দিয়ে মাঠে প্রবেশ করে বেশ কিছুক্ষণ আম্পায়ারের সাথে কথোপকথন করতে দেখা যায় তাকে। অনেকটা রাগ ক্ষোভ নিয়ে কথা বলতে দেখা যায় তাকে।

ছবিঃ মোহাম্মদ মিথুন।

স্বভাবতই নিজেদের মাঠে ফেবারিট সিলেট আর সিলেটের পেস অ্যাটাকের সুনাম সর্বত্র। এবাদতের বোলিং লেভেল নিয়ে পশ্ন তুলেন খুলনার অধিনায়ক মিথুন। তার এই বাউন্সি বোলিং নিয়েই বিপত্তি বাধায় মোহাম্মদ মিথুন।সিলেটের বোলিং নিয়ে প্রশ্ন টানায় খেলায় প্রায় ২২ মিনিট বন্ধ রাখা হয়। নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা যায় যে, পিচ নিয়ে সিলেটের প্রধান কোচ এবং সাবেক জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক রাজিন সালেহের সাথেও তর্কে জড়ান মিথুন। এ ব্যাপারের তাদের সাথে কথা বলার চেষ্টা করা হলে তাদের সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।