তিন ম্যাচের ওয়ানডে ও সমান সংখ্যক টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে চলতি মাসের শেষ দিকে নিউজিল্যান্ড সফরে যাওয়ার কথা বাংলাদেশের। আগেই টাইগার এই সূচি চূড়ান্ত হয়েছে। তবে সফরকারী দলের কথা ভেবে তাতে খানিকটা পরিবর্তন এনেছেন নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড।

করোনার কারণে কোন দেশে সফর করলে থাকতে হবে কোয়ারেন্টাইনে। সেক্ষেত্রে সফরকারী দল অনুশীলনের সুবিধা কম পাবে। আর সে কথা ভেবে সফরসূচি এক সপ্তাহ পিছিয়ে দিয়েছে এনজেডসি।

এফটিপি সূচি অনুযায়ী চলতি মাসের শেষ দিকে তিনটি করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে নিউজিল্যান্ড সফরে যাওয়ার কথা বাংলাদেশের। পূর্ব নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী ১৩, ১৭ এবং ২০ মার্চ যথাক্রমে ডানেডিনে, ক্রাইস্টচার্চে এবং ওয়েলিংটনে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল ওয়ানডে সিরিজ। তবে নতুন সূচিতে আগামী ২০, ২৩ ও ২৬ মার্চ একই মাঠে ম্যাচগুলো অনুষ্ঠিত হবে। এর মাঝে দ্বিতীয় ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে দিবা-রাত্রির।

২৩ মার্চ টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরু হওয়ার কথা ছিল। সূচি অনুযায়ী ছিল সিরিজের বাকি দুটি ম্যাচ ২৬ ও ২৮ মার্চ। তবে সেগুলোর পরিবর্তে ২৮, ৩০ ও ১ এপ্রিল যথাক্রমে হ্যামিল্টন, নেপিয়ার ও অকল্যান্ডে অনুষ্ঠিত হবে ম্যাচগুলো। প্রথম দুটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে দিবা-রাত্রির। মূলত প্রস্তুতিটা ভালো করে করতেই পরিবর্তন এসেছে সূচিতে। পরিবর্তিত সূচিতে কুইন্সটাউনে এখন ৫ দিনের প্রস্তুতি ক্যাম্প করবে বাংলাদেশ দল।

বাংলাদেশের নিউজিল্যান্ড সফরের পরিবর্তিত সূচিঃ
১ম ওয়ানডে- ২০ মার্চ, ইউনিভার্সিটি অব ওটাগাে ওভাল, ডুনেডিন।
২য় ওয়ানডে- ২৩ মার্চ , হেগলি ওভাল , ক্রাইস্টচার্চ।
৩য় ওয়ানডে- ২৬ মার্চ , বেসিন রিজার্ভ , ওয়েলিংটন।

১ম টি – টোয়েন্টি- ২৮ মার্চ , সেডন পার্ক , হ্যামিল্টন।
২য় টি – টোয়েন্টি- ৩০ মার্চ , ম্যাকলিন পার্ক , নেপিয়ার। ৩ য় টি – টোয়েন্টি- ১ এপ্রিল , ইডেন পার্ক , অকল্যান্ড