জুবায়ের আহমেদ: দেশ স্বাধীন হওয়ার পর থেকেই বাংলাদেশ জাতীয় হকি দল আন্তর্জাতিক পর্যায়ে খেললেও বর্তমানে ক্রিকেট ফুটবলের দাপটে হকি নিয়ে মানুষের মাঝে তেমন উম্মাদান নেই। তবে আশির দশকে ফুটবলের পাশাপাশি হকিই ছিলো বাংলাদেশে অন্যতম জনপ্রিয় খেলা।

হকি নিয়ে মানুষের যত আগ্রহ ছিলো, তার সবটুকুই কিংবদন্তী হকি খেলোয়ার জুম্মন লুসাইকে ঘিরে। ১৯৭৮ সালে বাংলাদেশ পুলিশের হয়ে হকি খেলা শুরু করেন তিনি। ১৯৮২ সাল থেকে জাতীয় দলের হয়ে প্রতিনিধিত্ব শুরু করেন। তিনিই একমাত্র বাংলাদেশী খেলোয়ার যিনি হকিতে বিশ্ব একাদশের হয়ে খেলার সুযোগ পান এবং খেলেন।

১৯৮২ সালে দিল্লীতে অনুষ্ঠিত এশিয়ান গেমসে অংশগ্রহণ করেন তিনি, ইরানের সাথে ১৯৮৫ সালের এশিয়া কাপে হ্যাট্রিক করেন তিনি। ১৯৮৫ সালে ঢাকায় অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় এশিয়া কাপ, ১৯৮৬ সালে ১০তম এশিয়ান গেমস ও ১৯৮৯ সালে দিল্লীতে তৃতীয় এশিয়া কাপে খেলেন তিনি এবং উক্ত টুর্নামেন্ট শেষ করেই আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের ইতি টানেন। অবসরের পর দীর্ঘদিন আবাহনীর কোচের দায়িত্ব পালন করেন তিনি।

ক্রীড়ায় বিশেষ অবদানের জন্য ২০১১ সালে জাতীয় ক্রীড়া পুরষ্কারে ভূষিত হন তিনি। ২০১৫ সালে মৃত্যুবরণ করেন জুম্মন লুসাই, সমাপ্ত হয় একটি সফল অধ্যায়ের।

হকিতে বাংলাদেশের বড় কোন সাফল্য না থাকলেও জুম্মুন লুসাই বাংলাদেশকে সারা বিশ্বের হকির দল হিসেবেও পরিচিত করেছিলেন। ছোট্ট দেশের বড় তারকা হিসেবেই বিবেচিত হতেন তিনি।

তথ্যসূত্র-উইকিপিডিয়া।