যে কারনে বিগ ব্যাশ খেলতে পারছেন না সাকিব

95

আরকে রেজা, ক্রিকবল নিউজ:সাকিব আল হাসান বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের এক প্রান। ক্রিকেটের তিন বিভাগে একই সাথে হয়েছেন নাম্বার ওয়ান অলরাউন্ডার। বিশ্বে কে না চিনে সাকিবকে! বাংলাদেশ ক্রিকেট মাঠের গন্ডি পেরিয়ে বিশ্বের প্রায় সব ক্রিকেট মাঠে রয়েছে তার পদচিহ্ন। জস, খ্যাতি, অর্থ সব পেয়েছেন এই ৩৩ বছরে। বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলকে সার্ভিস দিতে চান আরো বেশ কিছু বছর।

গত বছর অক্টোবরে নন্দীত সাকিব হয়েছেন নিন্দীত। জুয়াড়ির আপত্তিকর প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলেন ঠিকই কিন্তু তা আইসিসিকে না জানিয়ে করেছেন মহা ভুল। ভুল হলে তার সাজা পাওয়াটাই স্বাভাবিক। সাজা হিসেবে ক্রিকেট থেকে এক বছরের নিষেধাজ্ঞায় ছিলেন দেশ সেরা এই অলরাউন্ডার। নিষেধাজ্ঞা শেষে বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপ-২০২০ হবে তার পুনরায় ক্রিকেটে ফেরার গল্প। গত এক বছর নিষেধাজ্ঞার কারনে খেলতে পারেনি কোন ক্রিকেট। আইপিএল, সিপিএল সাকিব বিহীন শেষ হলেও অস্ট্রেলিয়ার জনপ্রিয় টি-টোয়েন্টি আসর বিগ ব্যাশে খেলার কথা শোনা গেছে সাকিব আল হাসানের। কিন্তু ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার ইনটেগ্রিটি বিভাগের আপত্তি থাকায় অর্থাৎ অস্ট্রেলিয়ার পুলিশ নীতির কারনেই খেলতে পারছেন না বিগ ব্যাশ।

অস্ট্রেলিয়ার জনপ্রিয় টি-টোয়েন্টি লিগে বিদেশি ক্রিকেটার অন্তর্ভুক্ত করার পূর্বে অস্ট্রেলিয়া পুলিশ নীতি বিভাগের অনুমতি নিতে হয়। সাজা থেকে ফিরে আসা খেলোয়াড় তাদের নীতেতে খেলতে পারবেনা কোন দলে। বিগ ব্যাশের একটি দল সাকিবকে নিতে চাইলেও নিতে পারেনি অস্ট্রেলিয়া পুলিশ নীতির কারনে। তাই সুযোগ পেয়েও সাকিবের হাতছাড়া হয়ে গেলো বিগ ব্যাশের মত বড় ফ্র্যাঞ্জাইজি লীগ খেলা।